21

জুয়ান ভ্যালেরন ইউডি লাস প্যালমাস

পূর্ণ নাম জুয়ান কার্লোস ভ্যালেরন সানটানা

জন্ম তারিখ 17 জুন, 1975

জন্মস্থান আরগুইনিগুইন, স্পেন

উচ্চতা 1.84 মিটার (6 ফুট 1⁄2 ইঞ্চি)

যে পজিশনে খেলেন অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার

জুয়ান ভ্যালেরন (জন্ম জুয়ান কার্লোস ভ্যালেরন সান্তানা) জন্মগ্রহণ করেন 17 জুন, 1975 সালে। তিনি স্প্যানিশ ফুটবল দল ইউনিয়ন ডিপর্টিভা লাস পালমাস এর হয়ে একজন আক্রমণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড় হিসাবে খেলেন। তিনি তার অসাধারণ দক্ষতার জন্য সুপরিচিত। তিনি 390 টি খেলায় অংশগ্রহণ করেছেন এবং লা লিগায় 15 টি সেশনে 90 টি গোল করেন। ভ্যালেরন স্পেনের হয়ে দুইটি ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপ এবং 2002 সালের বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করেন, ফলে তিনি 46 বার জাতীয় দলের হয়ে মাঠে নামার গৌরব অর্জন করেন। তিনি ক্লাব অ্যাটলেটিকো ডি মাদ্রিদ, ডিপর্টিভো ডি লা করুনা এবং রিয়াল ক্লাব ডিপর্টিভো ম্যালোরকার হয়ে খেলেন।

ঘটনাপূর্ণ ক্যারিয়ার

তার ফুটবল ক্যারিয়ার শুরু হয়েছে ইউডি লাস পালমাস থেকে। কিন্তু তিনি বালেয়ারিক দ্বীপপুঞ্জে চলে যান এবং আরসিডি ম্যালোরকার হয়ে 1997 এবং 1998 সেশনে খেলেন। ভ্যালেরন লা লিগায় প্রথম খেলেন 1997 সালের 31 আগস্ট, সেদিন ভ্যালেন্সিয়া ক্লাব ডি ফুটবল এর বিপক্ষে 10 মিনিটের খেলায় তারা 2-1 গোলে জয়লাভ করে। তিনি যখন আরসিডি ম্যালোরকাতে ছিলেন, তখন তিনি তার ক্লাবকে উয়েফা কাপের কোয়ালিফিকেশন নিশ্চিত করতে সহায়তা করেছেন।

দুই বছর পর, তরুন এই খেলোয়াড় যোগ দেন অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদে, সেখানে তিনি স্টার্টার হিসাবে খেলেন 2000 সালে ক্লাবটির নিম্ন অবস্থানে আসার আগ পর্যন্ত। ভ্যালেরণ ডিপর্টিভোর হয়ে খেলেছেন এবং তার অবস্থান ফুটবল খেলোয়াড় জালমা ফেইটোসা ডায়াস (জালমিনহা) এর সাথে শেয়ার করেছেন। 2004 সালে ভ্যালেরন তার ক্যারিয়ারের সেরা সময়ের বাকী অংশ কাটান গ্যালিসিয়াতে।

কিন্তু হঠাৎ করে দুর্ভাগ্যজনিত কারণে তার অবস্থান থেকে সরে আসতে হয়। 2006 সালের জানুয়ারিতে ভ্যালেরন হাঁটুতে আঘাতাপ্রাপ্ত হন এবং এক বছর পর তিনি আবারও হাঁটুর সমস্যায় পড়েন। সুস্থ অবস্থায় এই পেশাদার ফুটবলার দুইটি লিগে অংশগ্রহণ করতে পেরেছিলেন, তারপর আবারও তাকে সার্জারি করাতে হয়।

বিখ্যাত এই ফুটবলারকে পুনরায় দেখা যায় 2007-2008 ক্যাম্পেইনে। ভ্যালেরন ডিপর্টিভোতে তার ফিরে আসাকে স্মরণীয় করে রাখেন রিয়াল ভ্যালাডোলিড ক্লাব ডি ফুটবলের বিপরীতে 3-1 গোলে জয়লাভ করার মাধ্যমে। এসময় ভ্যালেরণ স্পেন, তথা ইউরোপে একজন গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়ার হয়ে ওঠেন।

2011 এবং 2012 সালের মধ্যে এই ফুটবল খেলোয়াড় ডিপর্টিভোর অন্যতম সেরা সেরা স্টার্টার হয়ে ওঠে। তার দল পুনরায় চ্যাম্পিয়ন হয় এবং ভ্যালেরন সেগুন্ডা ডিভিশনে তার ক্যারিয়ারের সেরা পাঁচটি গোল করেন 3,000 মিনিটের খেলায়। পেশাদার ফুটবল খেলোয়াড় ভ্যালেরন চুক্তি বাতিল করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন এবং তার প্রথম ফুটবল দলে ফিরে যান।

ভ্যালেরন ইউডি লাস পালমাসে আবার ফিরে আসেন এবং 1+1 চুক্তি করেন। তিনি 16 বছর আগে ক্লাব ছেড়ে দেওয়ার পরেও উক্ত ক্লাবে একজন গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড় হিসাবে খেলেন। তিনি 2015 সালে সর্বোচ্চ লেভেলে চলে আসেন। ভ্যালেরণ আমারিলোস এর সাথে চুক্তির নবায়ন করে এবং শীর্ষ লিগে খেলা নিশ্চিত করেন। বার্সেলনার সাথে 22 মিনিটের খেলায় ব্যবধান হয় 1-2। সবচেয়ে বেশি বয়স্ক খেলোয়াড়ের দিকে থেকে লিগে তার অবস্থান হয় পঞ্চম। ডিসেম্বরে ভ্যালেরনকে এক পজিশন উপরে খেলানো হয়, এর আগে তিনি রিয়াল বেটিস ব্যালম্পাই এর পরিবর্তিত খেলোয়াড় হিসাবে খেলতেন।

বিশিষ্ট এই ফুটবল খেলোয়াড় সালের্নোতে ইতালির সাথে 2-2 ফ্রেন্ডলি ড্র করার ম্যাচে খেলেছিলেন। ভ্যালেরন 2002 সালের বিশ্বকাপে উয়েফা ইউরোতে স্পেনের জাতীয় দলে অংশগ্রহণ করে, সেখানে তারা স্লোভেনিয়ার বিপক্ষে 3-1 গোলে জয় পায়। 2004 সালের ইউরোতে তারা রাশিয়ার বিপক্ষে 1-0 ব্যবধানে জয়লাভ করে।

স্বীকৃতি

ভ্যালেরনকে স্পেনের সবচেয়ে বিখ্যাত খেলোয়াড়দের মধ্যে একজন বিবেচনা করা হয়। তার ম্যানেজার জুয়ান অ্যানটোনিও অ্যানকোয়েলা জাতীয় ফুটবলের প্রসঙ্গে এই ফুটবল খেলোয়াড়ের কথা উল্লেখ করেন। কোচ ভিচেন্তে ডেল বস্কো বলেন ভ্যালেরন সবসময়ই জাতীয় দলে খেলার যোগ্যতা রাখে। কোচ আন্দ্রেস ইনিস্তিয়া বলেন, তিনি ভ্যালেরনকে ফুটবল আঙ্গিনায় দেখতে পছন্দ করেন।

জাতীয় দলের সতীর্থ খেলোয়াড় এবং এফসি বার্সেলনা ম্যানেজার লুইস এনরিক তার দক্ষতার প্রশংসা করেন। সাবেক ডাচ ফুটবলার জিমি ফ্লয়েড হ্যাসেলবানিক এবং রয় মাকায় তাদের সাথে খেলা সবচেয়ে সেরা ফুটবলাদের মধ্যে একজন হিসাবে মনে করেন ভ্যালেরন।

ইউডি লাস পালমাস এর সতীর্থ খেলোয়াড় জাভি কাস্টেলানো ভ্যালেরনকে তার সততা ও নম্রতার জন্য প্রশংসা করেন। তার দলের প্রসিডেন্ট মিগুয়েল আঞ্জেল র‍্যামিরেজ ভ্যালেরনকে স্পেনের খেলা থেকে বিদায় নেওয়ার আগে আরও একটি মৌসুম খেলে যাওয়ার পরামর্শ দেন।

ফুটবলের বাইরের জীবন

ভ্যালেরন , যদিও স্রষ্টার প্রতি ভক্তি রাখতেন, কিন্তু তিনি স্বীকার করেছেন যে তিনি কোনো ধর্মের অন্তর্ভুক্ত নন। তার বড় ভাই মিগুয়েল আঞ্জেল একজন ফুটবলার এবং তিনি মধ্যমাঠের খেলোয়াড়। তার ভাই পেদ্রোকে সাথে নিয়ে তিনি একটি ফুটবল ক্লাব প্রতিষ্ঠা করেছেন, যার নাম দিয়েছেন অ্যাব্রিসাজ্যাক - বাইবেলের আব্রাহাম, ইসাক এবং জ্যাকব এর নামের সমন্বয়ে এই নাম তৈরি করেছেন। ভ্যালেরন এর ভাতিজা মানু, তিনিও লাস পামাস এর খেলোয়াড়।

Top Yandex.Metrica Top
Execution time: 0.0921 total memory: 6.13MB